1. admin@voiceofnaogaon.com : admin :
বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীয় মেয়র হতে চলেছেন, খন্দকার শায়লা পারভীন - ভয়স অফ নওগাঁ
সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ০৩:১৫ পূর্বাহ্ন
প্রধান খবর
ঈদের শুভেচ্ছা ও সতর্কতা জানিয়েছেন জেলার সুযোগ্য পুলিশ সুপার শাহ্ ইফতেখার আহমেদ আহমেদ পিপিএম (বার) নবনির্বাচিত ভাইস-চেয়ারম্যান পপি’র বিরুদ্ধে অপপ্রচার নওগাঁ ব্লাড সার্কেলের বিশ্ব রক্তদাতা দিবস উদযাপন রির্জাভের গাছ চোরকে মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেয়ার অভিযোগ কুষ্টিয়া শহরের পুরাতন আলফা মোড় এলাকায় সন্ত্রাসী হামলায় একজন গুরুতর আহত সদর হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি নওগাঁয় নেশাগ্রস্ত হয়ে বাড়ি ফেরায় ছেলের লাঠির আঘাতে প্রাণ গেলো বাবার কারিতাসের উদ্যোগে শিশুদের অধিকার ও সুরক্ষা নিশ্চিত করার জন্য মিডিয়া এ্যাডভোকেসী ৪০ শতাংশ জমিতে ওলকচু চাষ করে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন কৃষক আবু বক্কর সিদ্দিক বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের জেসিএমএস বিভাগের শিক্ষার্থীদের ইন্টার্নশিপ সমাপনী প্রেজেন্টেশন অনুষ্ঠিত শেখ হাসিনা’র কারামুক্তি দিবস উপলক্ষে স্বেচ্ছাসেবক লীগের আলোচনা সভা, দোয়া, মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত

বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীয় মেয়র হতে চলেছেন, খন্দকার শায়লা পারভীন

  • প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪

বাগমারা প্রতিনিধিঃ

রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার তাহেরপুর পৌরসভার উপনির্বাচনে মেয়র পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় মেয়র নির্বাচিত হচ্ছেন খন্দকার শায়লা পারভীন।

তিনি রাজশাহী-৪ (বাগমারা) আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য আবুল কালাম আজাদের স্ত্রী ও তাহেরপুর পৌরসভার প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আলো খন্দকারের মেয়ে। তাঁর একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী ছোট ভাই তানভীর ইসলাম ফেরদৌস প্রার্থীতা প্রত্যাহার করে নেওয়াতে আর কোনো প্রার্থী থাকলো না।

মেয়র পদে উপনির্বাচনে মনোনয়নপত্র উত্তোলনের শেষ দিনে গত ১৩ ফেব্রুয়ারি শায়লা পারভীনসহ দুজন মনোনয়নপত্র উত্তোলন করেন। অন্যজন হলেন শায়লার ছোট ভাই তানভীর ইসলাম ফেরদৌস।

গত ১৬-১৮ ফেব্রুয়ারি বাছাইয়ে দুইজনের মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করা হয়। তবে প্রত্যাহারের শেষ দিনে আজ বৃহস্পতিবার সকালে বড় বোনের একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী তানভীর ইসলাম ফেরদৌস প্রার্থীতা প্রত্যাহার করে নেন। উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা (চলতি দায়িত্বে) আবদুল মজিদ বিয়ষটি নিশ্চিত করেছেন।

আগামী ৯ মার্চ তাহেরপুর পৌরসভার মেয়র ও এক কাউন্সিলর পদে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। তাহেরপুর পৌরসভা উপনির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও রাজশাহী জেলার জেষ্ঠ্য নির্বাচন কর্মকর্তা মো. শাহিনুর ইসলাম প্রামানিক বলেন, কাল প্রতীক বরাদ্দ হবে। খন্দকার শায়লা পারভীন জগ প্রতীক চেয়েছিলেন। আরও কিছু আনুষ্ঠানিকতা আছে, এরপর শায়লা পারভীনকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় নির্বাচিত ঘোষণা করা হবে। তবে ওই পৌরসভায় সাধারণ কাউন্সিলর পদে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

প্রার্থীতা প্রত্যাহার প্রসঙ্গে শায়লার ছোট ভাই তানভীর ইসলাম ফেরদৌস বলেন, আমার স্বইচ্ছায় আমি মনোনয়ন পত্র তুলে নিয়েছি, ভাই বোনের আমাদের কোন বিরোধ নাই, এবং আমি খুশি যে আমার বোন তাহেরপুর পৌরসভার মেয়র হচ্ছেন। ২০০৫ সালে আমার বোনের দ্বিতীয় নির্বাচনে এই তাহেরপুর থেকে চোখের জলে বিদায় নিতে হয় এবং দীর্ঘ ১৯ বছর পর তার মেয়র এর আসনে বসবেন, ভাই হিসাবে আমি খুবি আনন্দিত খুবি গৌরবিত খুশি তাকে আবারও চেয়ারে বসাতে পারছি। খন্দকার পরিবারের একমাত্র উত্তরাধিকারী হিসাবে আমি আনন্দিত খন্দকার পরিবার একতাবদ্ধ ভাবে সব সময় থাকবো এই আশাই করছি।

সংসদ সদস্য আবুল কালাম আজাদ তাহেরপুর পৌরসভার মেয়র ছিলেন। তিনি পদত্যাগ করে এবার দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়নে অংশ নিয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। এর ফলে মেয়র পদটি শূন্য হয়।

খন্দকার শায়লা পারভীন এর আগে ২০০৩ সালে উপনির্বাচনে অংশ নিয়ে প্রথম চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। তাঁর বাবা আওয়ামী লীগের নেতা ও পৌরসভার তৎকালীন চেয়ারম্যান আলো খন্দকার চরমপন্থীদের হামলায় নিহত হওয়ার পর উপনির্বাচনে অংশ নিয়ে তিনি নির্বাচিত হন।

খন্দকার শায়লা পারভীন বলেন, তিনি ২০০৩ সালে প্রথম চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে ব্যাপক উন্নয়ন করেছেন। আগের মতোই লোকজনের পাশে থেকে সেবা, বর্তমান সরকার ও সংসদ সদস্যের সহায়তায় উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখবেন বলে জানান।

সংসদ সদস্য আবুল কালাম আজাদ বলেন, শায়লা পারভীনের বাবা বীর মুক্তিযোদ্ধা আলো খন্দকার এই পৌরসভার প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ছিলেন। একজন সংসদ সদস্য হিসেবে তিনি পৌরসভার উন্নয়নে সব ধরনের সহায়তা করবেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয় নিবন্ধনের প্রক্রিয়াধীন।
Powered by: Nfly IT